ডিভোর্স ছাড়াই স্বামী-সন্তান ফেলে নাসিরকে বিয়ে করেছেন তামিমা!
ডিভোর্স ছাড়াই স্বামী-সন্তান ফেলে নাসিরকে বিয়ে করেছেন তামিমা!

ডিভোর্স ছাড়াই স্বামী-সন্তান ফেলে নাসিরকে বিয়ে করেছেন তামিমা!

জাতীয় দলের আলোচিত ক্রিকেটার নাসির হোসেন গত রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) বিয়ে করেছেন। রাজধানীর উত্তরার একটি রেস্টুরেন্টে বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়।

নাসিরের স্ত্রীর নাম তামিমা তাম্মি। তিনি পেশায় একজন কেবিন ক্রু। কাজ করেন বিদেশি একটি এয়ারলাইন্সে।

দুজনের চেনাজানা অনেক আগে থেকেই। গেল বছর সেপ্টেম্বরে ইনস্টাগ্রামে একটি মেয়েকে নিয়ে পোস্ট দিয়েছিলেন নাসির। যদিও মিনিট দশেক পর পোস্টটা ডিলিটও করে দিয়েছিলেন। শেষ পর্যন্ত তার সঙ্গে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন।

তবে বিয়ের খবর ছাপিয়ে নাসিরের স্ত্রীকে জড়িয়ে নতুন বিতর্ক শুরু হয়েছে। সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কিছু পোস্ট এবং ছবি প্রকাশ করা হয়েছে যেখানে দাবি করা হচ্ছে, এগারো বছর আগে অন্য জায়গায় বিয়ে হয় তামিমার। সেই ঘরে আট বছরের একটি মেয়ে সন্তানও রয়েছে। কিন্তু স্বামীকে তালাক না দিয়েই ক্রিকেটার নাসিরকে বিয়ে করেছেন তামিমা!

এ বিষয়ে আইনগত পদক্ষেপ নিচ্ছেন তামিমার সাবেক স্বামী রাকিব হাসান। তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি জিডি করেছেন।

উত্তরা পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাও (ওসি) শাহ মো. আক্তারুজ্জামান ইলিয়াস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

স্ত্রীর এমন কর্মকাণ্ডে হতবাক রাকিব জানান, তার ৮ বছরের একটি মেয়ে আছে। ২০২০ সালের মার্চেও তারা পুরো পরিবার নিয়ে রাজধানীর লা মেরিডিয়ান হোটেলে থেকেছেন।

রাকিব বলেন, এখনও আমাদের ডিভোর্স হয়নি। কোনো নোটিশ ছাড়া কীভাবে আমার স্ত্রী ৮ বছরের বাচ্চাকে ফেলে অন্য একজনকে বিয়ে করলো সেটাই আমি বুঝতে পারছি না।

এদিকে, রাকিব হাসান ও ক্রিকেটার নাসির হোসেনের একটি ফোন রেকর্ড মিলেছে যেখানে রাকিবকে ফোন করে জিডি করার ব্যাপারটি ধামাচাপা দিতে বলেন নাসির। রাকিবের প্রশ্ন ছিল আপনি কি তামিমা সম্পর্ক সব কিছু জানেন? উত্তরে নাসির হোসেন বলেন তার সব কিছু জেনেশুনেই আমি তাকে বিয়ে করেছি। তার বাচ্চা আছে, তার আগেও বয়ফ্রেন্ড ছিল সবকিছুই আমি জানি। আপনার বৌ আপনার সাথে ভালো থাকলে নিশ্চই আপনার ১১ বছরের সংসার ভেঙ্গে আমার কাছে চলে আসতো না।

রাকিব হাসান ও তামিমার কাবিননামায় দেখা যায় ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি তিন লক্ষ টাকা দেনমোহরে তাদের বিয়ে হয়। রাকিবের দাবি, গেল ১১ বছরে তার স্ত্রীর পড়াশোনা থেকে শুরু করে জব সবক্ষেত্রেই তিনি সাহায্য করেছেন।

এই বিষয়ে জানতে ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তার স্ত্রী তামিমা সুলতানার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

এর আগে সামাজিকমাধ্যম ফেসবুকে খেলাধুলা সম্পর্কিত একটি বড় গ্রুপ ক্রিকসেল-CricCell। এর সদস্য সংখ্যা ১ লাখ ৭৫ হাজারের বেশি। ক্রিকসেল গ্রুপের অ্যাডমিন ও মডারেটর ৯ জন। এর মধ্যে এম.এ. রোমান নামে একজন মডারেটর রয়েছেন। শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) তিনি গ্রুপে সকাল ৮টা ৩৪ মিনিটে একটি পোস্ট করেন। সেখানে তামিমার আগে বিয়ে হয়েছিল বলে দাবি করা হয়।

এম.এ. রোমানের পোস্টে বলা হয়,

‘কি এক্টা ভয়াবহ অবস্থা !!

এগারো বছরের বিবাহিত স্বামীকে তালাক না দিয়েই ক্রিকেটার নাসিরকে বিয়ে করেছে তামিমা নামের মেয়েটা এবং তার আগের ঘরে আট বছরের একটা মেয়েও নাকি আছে। তার সমস্ত পড়ালেখার খরচ চালিয়ে তাকে এ পর্যন্ত এনেছেনই তার আগের স্বামী। সে তাকে এত ভালোবাসেন যে এতকিছুর পরও তার বউ ফিরে এলে সে তাকে মেনে নিবে ।

এখন আমার কথা হলো নাসির জেনেশুনে তাকে বিয়ে করল। অথচ তার যে আইন অনুযায়ী ডিভোর্সই হয়নি সেটা খতিয়ে দেখল না! মাই গড! আমি ভাবছি শুধু বাচ্চাটার কথা! সব ঠিক হলেও তার জীবনটা ধোঁয়াশায় পড়ে গেল।

শেষ খবর নিউজটা সত্যি: সন্দেহ হলে কল রেকর্ডটা শুনবেন: https://m.facebook.com/groups/CricketKhor/permalink/3753460954766910/”

error: Content is protected !!