‘প্রতারক’ ডি ককের ওপর খেপেছেন পাকিস্তানি সমর্থকরা

৬ বলে দরকার ৩১ রান। উইকেটে অবিশ্বাস্য এক ইনিংস খেলা ব্যাটসম্যান ফাখর জামান ১৯২ রানে। পাকিস্তান কি পারবে এই ম্যাচটা জিততে? কঠিন হলেও অসম্ভব ছিল না। ফাখর প্রথম বলটি লংঅফে ঠেলে দিয়েই স্ট্রাইকে যাওয়ার জন্য দুই নিতে যাচ্ছিলেন।

দুই রান হয়তো হয়েও যেতো। কিন্তু এমন সময়ে ঘটল অবিশ্বাস্য এক ঘটনা। কুইন্টন ডি কক ননস্ট্রাইক এন্ডের দিকে তাকিয়ে এমন ভাব করলেন, যেন ওদিকের ব্যাটসম্যান আউট হয়ে যাচ্ছেন। ফাখরও এই চালাকিটা ধরতে পারলেন না। রান পূর্ণ হওয়ার আগেই সঙ্গী ব্যাটসম্যানের অবস্থা দেখতে পেছনে তাকালেন, ওদিকে তার এন্ডেই থ্রোতে উইকেট ভেঙে দিলেন ফিল্ডার।

১৯৩ রানে থাকা ফাখর তখন বিস্ময়ে বিহ্বল। কাকে দুষবেন? নিজের বোকামিকে নাকি ডি ককের এমন আচরণকে? ম্যাচ শেষে অবশ্য ফাখর বলেছেন, তিনি নিজেরই দোষ মনে করছেন। এভাবে পেছনে তাকানো ঠিক হয়নি।

তবে ক্ষুব্ধ পাকিস্তানি সমর্থকরা কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না এই ঘটনা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ডি কককে রীতিমত ধুয়ে দিচ্ছেন তারা, অ্যাখ্যা দিয়েছেন ‘প্রতারক’।

টুইটারে একজন লিখেছেন, ‘ভদ্রলোকের খেলাটা হয়ে গিয়েছিল প্রতারকের খেলা। প্রতারক ডি কক।’ যেখানে ডি ককের ছবি দিয়ে ওপরে লেখা হয়েছে, ‘ইফ চিটার হ্যাড এ ফেইস।’

আরেকজন লিখেছেন, ‘ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে জঘন্য প্রতারণা।’ ডি ককের হাসিভরা মুখের ছবি দিয়ে পাকিস্তানের এক ভক্তের টুইট এমন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকার সুনাম নষ্ট হলো ডি ককের দ্বারা। গতকালের আগ পর্যন্ত সে আমার পছন্দের খেলোয়াড় তালিকায় ছিল। দেখুন তার শয়তানি হাসি।’

আরেক পাকিস্তানি সমর্থকের টুইট, ‘চিন্তা করুন এমন ঘটনা যদি ধোনি, রোহিত বা কোহলির সঙ্গে ঘটাতো ডি কক! ফাখর জামান এবং পাকিস্তান দলের জন্য খারাপ লাগছে। আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী এই ফাউলপ্লে’র বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা উচিত তাদের।’

error: Content is protected !!