Breaking News

খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ ছয় মাস বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার দণ্ড স্থগিত করার মেয়াদ আরও ছয় মাস বাড়ানো হয়েছে।
শর্তসাপেক্ষে সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়াতে খালেদা জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে আসা এই আবেদনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুমোদন দেয়ার পরে এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, খালেদা জিয়ার দণ্ডাদেশ শর্ত সাপেক্ষে ২৫শে সেপ্টেম্বর থেকে পরবর্তী ছয় মাসের জন্য নির্দেশক্রমে স্থগিত করা হলো। এ সময় খালেদা জিয়া ঢাকায় নিজ বাসায় থেকে চিকিৎসা নিতে পারবেন তবে তিনি দেশের বাইরে যেতে পারবেন না। এছাড়া তার সাজা স্থগিতের বিষয়ে আগের যে শর্তসমূহ ছিলো তা অপরিবর্তিত থাকবে।

এর আগে, আইন মন্ত্রণালয়ও তার সাজা স্থগিতের মেয়াদ ছয় মাস বাড়ানোর জন্য আইনগত সুপারিশ করেছিল।

সরকারের নির্বাহী আদেশে সাজা স্থগিত করে গত ২৫ মার্চ খালেদা জিয়াকে শর্তসাপেক্ষে মুক্তি দেয়া হয়। যার মেয়াদ ২৪ সেপ্টেম্বর শেষ হবে। খালেদা জিয়া এখন গুলশানে ভাড়া বাসায় আছেন।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ আদালত। রায় ঘোষণার পর খালেদা জিয়াকে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে অবস্থিত পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি রাখা হয়। এরপর ৩০ অক্টোবর এ মামলায় আপিলে তার আরও পাঁচ বছরের সাজা বাড়িয়ে ১০ বছর করেন হাইকোর্ট।

একই বছরের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন একই আদালত। রায়ে সাত বছরের কারাদণ্ড ছাড়াও খালেদা জিয়াকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেন আদালত।

পরবর্তীতে, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার কথা বিবেচনা করে বিশেষায়িত কোনো হাসপাতালে চিকিৎসার ব্যবস্থা করার দাবি জানানো হয় পরিবারের পক্ষ থেকে। পরে, পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে কেবিন ব্লকে রেখে চিকিৎসা দেয়া হয়।