স্কুল ছাত্রীকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ থানা ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে

নরসিংদীর রায়পুরায় দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী ওই ছাত্রী।

এ ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছেন রায়পুরা উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আসাদুল হক চৌধুরী শাকিল। ভুক্তভোগী দশম শ্রেণির ছাত্রীকে রাতেই উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) রাত ১১টায় রায়পুরা উপজেলা অডিটোরিয়ামের একটি কক্ষে ধর্ষণের এ ঘটনা ঘটে। রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। ছাত্রলীগ নেতা শাকিলের পিতা পাড়াতলী কলিমউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল হক চৌধুরী।

পুলিশ ও ভুক্তভোগীর পারিবারিক সূত্র জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে ভুক্তভোগীকে অডিটোরিয়ামে ডেকে নিয়ে আসে রায়পুরা উপজেলার ছাত্রলীগের সভাপতি শাকিল। সেখানে তার ওপর পাশবিক নির্যাতন করার সময় খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন চারদিক থেকে অডিটোরিয়াম ঘেরাও করে। এ সময় ছাত্রলীগ নেতা ভবনের পিছনের গাছ টপকে কৌশলে পালিয়ে যায়। পরে ৯৯৯ এ কল করে বিষয়টি জানানো হলে রায়পুরা থানা পুলিশ ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

নির্যাতনের শিকার ওই স্কুল ছাত্রীর বাবা জানান, আমার মেয়ের ওপর অমানুষিক নির্যাতন চালিয়েছে ছাত্রলীগ নেতা শাকিল। আমি এর উপযুক্ত বিচার চাই।

রায়পুরা উপজেলার আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আফজাল হোসাইন বলেন, আমি এই ঘটনা শুনেছি। শাকিল ছেলেটি খুবই বাজে। এর আগেও তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ
আমি পেয়েছি। আমি এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানায় ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

এই ব্যাপারে রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার মহসিনুল কাদির জানান, ছাত্রলীগ নেতা শাকিলের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে ভুক্তভোগী। আসামি শাকিলকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

You cannot copy content of this page