ঢাকা দক্ষিণ আ.লীগের কমিটিতে হাজী সেলিম

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ৭৩ সদস্যবিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ১৯ (নভেম্বর) ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফী ও সাধারণ সম্পাদক হুমায়ূন কবির স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়।

এই কমিটিতে ২৭ জনকে উপদেষ্টা করা হয়েছে, যার মধ্যে রয়েছেন আলোচিত-সমালোচিত ঢাকা-৭ আসনের সংসদ সদস্য হাজী সেলিম। এর আগের কমিটিতে তিনি সদস্য হিসেবে ছিলেন। তারও আগে অবিভক্ত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটিতে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন তিনি।

এই কমিটিতে ২৭ জনকে উপদেষ্টা করা হয়েছে। এ ছাড়া খন্দকার এনায়েত উল্ল্যাহসহ ১১ জনকে সহসভাপতি করা হয়েছে।

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে আছেন- মোরশেদ হোসেন কামাল, মো. মিরাজ হোসেন ও মহিউদ্দিন আহমেদ মহি।

অন্যান্য সম্পাদকীয় পদের মধ্যে আইনবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট জগলুল কবির, কৃষি ও সমবায়বিষয়ক সম্পাদক আবদুর রহমান, তথ্য ও গবেষণাবিষয়ক সম্পাদক আনিস আহম্মেদ, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক শেখ মো. আজহার, দফতর সম্পাদক রিয়াজউদ্দিন রিয়াজ, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক মো. ইসমাইল হোসেন, প্রচার ও প্রকাশনাবিষয়ক সম্পাদক চৌধুরী সাইফুন্নবী সাগর, বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক নাঈম নোমান, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক এফ এম শরিফুল ইসলাম, মহিলাবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট তাহমিনা সুলতানা, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক মোজাম্মেল হোসেন হেলাল, যুব ও ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক সাইদুল ইসলাম খান পল, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক এস কে বাদল, শিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক সম্পাদক মো. নাসির, শ্রমবিষয়ক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, সাংষ্কৃতিকবিষয়ক সম্পাদক আবদুল মতিন ভুইয়া, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যাবিষয়ক সম্পাদক হয়েছেন ডা. নজরুল ইসলাম।

সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পেয়েছেন গোলাম আশরাফ তালুকদার, মো. আকতার হোসেন ও গোলাম সরোয়ার কবির।

ফজলে নূর তাপস ও শাহ আলম মুরাদসহ ৩৬ জনকে কমিটিতে সদস্য হিসেবে রাখা হয়েছে।

সম্প্রতি হাজী সেলিমের ছেলে ইরফান সেলিমের সহযোগীরা রাস্তায় নৌবাহিনীর একজন কর্মকর্তাকে মারধর করার পর ব্যাপক আলোচনা হয়। ২৫ অক্টোবর রাতের ওই ঘটনার পর দিন পুরান ঢাকার সোয়ারিঘাটে হাজী সেলিমের বাসায় অভিযান চালিয়ে মদ্যপান ও অবৈধভাবে ওয়াকিটকি রাখায় তার ছেলে ইরফান সেলিমকে দেড় বছরের কারাদণ্ড দেয় র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।