করোনার কাছে হেরে গেলেন ‘গরিবের ডাক্তার’

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যশোরের বেনাপোলের গরিবের ডাক্তার নামে পরিচিত চিকিৎসক আমজাদ হোসেন (৬০) মারা গেছেন। শনিবার (০৪ জুলাই) সন্ধ্যায় ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

রোববার (০৫ জুলাই) ভোরে তার মরদেহ বেনাপোল নিয়ে আসা হয়। সকালে নিজের প্রতিষ্ঠিত রজনী ক্লিনিকের সামনে জানাজা শেষে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পারিবারিক কবরস্থানে তার মরদেহ দাফন করা হয়। জানাজায় উপস্থিত ছিলেন শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পুলক কুমার মন্ডল, যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বেনাপোল পৌরসভার মেয়র আশরাফুল আলম লিটন প্রমুখ।

চিকিৎসক আমজাদ হোসেন বেনাপোলের রজনী ক্লিনিকের মালিক ছিলেন। তিনি বেনাপোল পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ভবারবেড় গ্রামের বাসিন্দা।

শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ইউসুফ আলী বলেন, গত বুধবার (০১ জুলাই) দুপুরে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবে পাঠানো নমুনা থেকে চিকিৎসক আমজাদ হোসেনের করোনা আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত হই। ওই দিন দুপুরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রথমে ঢাকার শিকদার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সেখান থেকে কুর্মিটোলা হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় সেখান থেকে তাকে মীরপুর রিজেন্ট হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার সন্ধ্যায় মারা যান তিনি।

আমজাদ হোসেন শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল কর্মকর্তা ছিলেন। সম্প্রতি সরকারি চাকরি থেকে অবসর নিয়ে রজনী ক্লিনিক নামে বেসরকারি একটি হাসপাতাল দিয়ে চিকিৎসাসেবা দিতেন। সব ধরনের মানুষকে বিনা পয়সায় চিকিৎসা দিতেন। এজন্য এলাকায় গরিবের ডাক্তার হিসেবে তার সুখ্যাতি ছিল।